Watch The Best Educational TV Live Programs & News Update Today

info@newbangla.tv


কনডমের মারাত্বক ৭ টি ক্ষতিকর দিক

বেশির ভাগ পুরুষ জন্মনিয়ন্ত্রণে কনডমকে প্রধান নিরাপদ অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করেন।। কিন্তু কনডমের মারাত্বক ক্ষতি সম্পর্কে আর কত জনই বা জানেন? মনে রাখতে হবে একটি কনডম দুটি জীবনকে ধ্বংস করে দিতে পারে।

বেশির ভাগ পুরুষ জন্মনিয়ন্ত্রণে কনডমকে প্রধান নিরাপদ অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করেন। কিন্তু কনডমের মারাত্বক ক্ষতি সম্পর্কে আর কত জনই বা জানেন? মনে রাখতে হবে একটি কনডম দুটি জীবনকে ধ্বংস করে দিতে পারে। জার্মানের চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা কনডম ব্যবহারের ক্ষতি সম্পর্কে বলেছেন –

ক্ষতিকর দিকসমূহ

১. ল্যাটেক্স এলার্জি: বেশিরভাগ কনডম ল্যাটেক্স নামক এক ধরনের রাবার দিয়ে তৈরি হয়। দ্য আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব অ্যালার্জি, অ্যাজমা অ্যান্ড ইমিউনোলজি জানিয়েছে, বেশ কিছু মানুষের ল্যাটেক্সে উপস্থিত প্রোটিনের থেকে এলার্জি হতে পারে। ল্যাটেক্স এলার্জি হলে হাঁচি, নাক দিয়ে পানি পড়া, চুলকানি, মাথা ধরা, মাথা ঘোরা ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে। আবার অনেক ক্ষেত্রে অ্যানাফিলাক্সিজ হতে পারে যার ফলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

২. যৌন সংক্রমণ ব্যাধি: কনডম ব্যবহারে যৌন ব্যাধি সিফিলিস, গনেরিয়া এবং এইচআইভি’র হাত থেকে বাঁচা যায়। কিন্তু কিছু ব্যাধি আছে যেমন স্কাবিয়েস ইনফেকশন যা ত্বকের বাইরের স্তরের ক্ষতি করে। কারণ কনডম পুরো জায়গাটাকে সুরক্ষা দিতে সক্ষম নয়। তাই মহিলাদেরও হার্পিস ভাইরাস সংক্রমণ হতে পারে।

৩. শতভাগ গর্ভনিরোধ সম্ভব না: অনেক সময় কনডম ব্যবহার করলেও গর্ভধারণ এড়ানো যায় না। ১০০ জন মহিলার মধ্যে দেখা গেছে ১৫ জন মহিলা গর্ভবতী হয়ে পড়েন। এটার ব্যবহার বেশিরভাগ পুরুষ জানেন না তাই ইন্টারকোর্সের সময় কনডম ছিঁড়ে যায়। ফলে গর্ভবতী হওয়ার সম্ভবনাকে বাড়িয়ে দেয়।

৪. যৌনসঙ্গীর স্বাস্থ্য ঝুঁকি : বিদেশে চিকিৎসকরা অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানিয়েছেন পুরুষের কনডম থেকে মহিলারা ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন। কালপ্রিট হল শুকনো লালা জাতীয় জীবাণু। গবেষণায় দেখা গেছে, শুকনো লালায় ওভারিয়ান ক্যান্সার এবং ফ্যালোপিয়ান টিউবে ফাইব্রোসিস হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিয়েছে। বিদেশে তাই অনেক জায়গায় এটি নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

৫. আরামদায়ক যৌন আনন্দে অস্বস্তি : অনেকে অভিযোগ করেন যে কনডম ব্যবহার করলে যৌনতার আনন্দ উল্লেখযোগ্যভাবে কমে যায়। এটি অতিরিক্ত তৈলাক্তকরণের কারণ হতে পারে। কনডম ব্যবহারে আনন্দের অভাব ঘটে ও শুধু ত্বক থেকে চামড়ার যোগাযোগেই পাওয়া যায়।

৬. সংবেদনশীলতা কমিয়ে দেয়: কনডম ব্যবহারে যৌন মিলনের তৃপ্তি কমে যায় এমন ধারণা অনেকের। তবে গবেষণা অনুযায়ী, মিলনকালে কনডম ব্যবহার করলে যৌনাঙ্গে সংবেদনশীলতার তারতম্য ঘটে। এটা যৌনতায় মানসিক অস্বস্তি তৈরি করে।

সুতরাং সুন্দর ও আনন্দময় জীবনের জন্য কনডম ব্যবহার ছেড়ে প্রাকৃতিক জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি গ্রহণ করা সময়ের দাবি। আপনি কি ভাবছেন কনডম ছাড়া আবার কীভাবে জন্মনিয়ন্ত্রণ সম্ভাব? তাহলে আমাদের পরের ভিডিওটি দেখুন। খুব সহজে আপনি এই পদ্ধতি আয়ত্ব করতে পারবেন।